কফি খাওয়ার ১৫টি উপকারিতা – ২০২৩

কফি খাওয়ার ১৫টি উপকারিতা – ২০২৩: বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে কফি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এমনকি প্রাপ্তবয়স্ক এবং শিশুরাও কফি পান করতে পছন্দ করে। এছাড়া কফিতে থাকা বিভিন্ন উপাদান আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তো চলুন কফি খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

কফি খাওয়ার উপকারিতা

কফি খাওয়ার ১৫টি উপকারিতা - ২০২৩

  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়
  • হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়
  • ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়
  • মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করে
  • স্মৃতিশক্তি বাড়ায়
  • খেলাধুলায় উন্নতি
  • আনন্দের অনুভূতি
  • লিভারকে রক্ষা করে
  • ত্বক উজ্জ্বল করে
  • অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট
  • ঘুম ভালো হয়
  • হজমশক্তি বাড়ায়
  • পারকিনসন রোগ প্রতিরোধ করে
  • ডায়াবেটিস কমাতে পারে
  • মস্তিষ্ক ভালো কাজ করে

১) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

টাইপ 2 ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের জন্য কফি পান করা বিশেষভাবে উপকারী । কারণ কফি রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে পারে । কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে কফি যে কোনো ধরনের রোগকে উল্লেখযোগ্যভাবে কমাতে পারে । এমনকি এটি আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে ।

২) হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়

আমরা অনেকেই মনে করি কফি পান করলে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বেড়ে যায় । কিন্তু ধারণা সম্পূর্ণ ভুল । গবেষকদের মতে, ক্যাফেইন হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সক্ষম । প্রতিদিন কফি খাওয়া রক্তনালিতে ক্যালসিয়াম জমাতে বাধা দেয় । ফলে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায় ।

৩) ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়

ক্যান্সার অন্যতম প্রাণঘাতী রোগ । আজ সারা বিশ্বে অনেক মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে । আপনি কি জানেন কফি পান করলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে? বিশেষ করে লিভার ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সক্ষম । এছাড়া এটি কোলোরেক্টাল ক্যান্সার, স্তন ও প্রস্টেট ক্যান্সার, পাকস্থলীর ক্যান্সার নিরাময়ে বিশেষ ভূমিকা পালন করে ।

৪) মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করে

গবেষকদের মতে, ক্যাফেইনযুক্ত কফি আমাদের শরীরে প্রবেশ করলে মনোযোগ বাড়ে । আবার আরেকটি গবেষণায় দেখা গেছে যে কফি স্থায়ীভাবে আল্জ্হেইমের রোগ নিরাময় করতে পারে । এর জন্য প্রতিদিন দুই থেকে তিন কাপ কফি পান করতে হবে ।

৫) স্মৃতিশক্তি বাড়ায়

কফি আমাদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে । ফলে আলঝেইমারের মতো কঠিন রোগ থেকে মুক্তি দিতে পারে । আলঝেইমার রোগ ৬৫ বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তিদের মধ্যে বেশি দেখা যায় ।

তাই আপনি যদি প্রতিদিন দুই থেকে তিন কাপ কফি পান করতে পারেন তাহলে আপনার আলঝেইমার সহজেই দুর হয়ে যাবে । এছাড়াও আমাদের স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে পারে ।

৬) খেলাধুলায় উন্নতি

ক্যাফেইনযুক্ত কফি পান করলে শরীর সুস্থ থাকবে । এছাড়া আপনার আয়ু বাড়বে । এমনকি হৃদস্পন্দন বাড়াতেও সাহায্য করবে । ফলস্বরূপ, আপনার খেলাধুলা অবশ্যই উন্নতি হবে । কারণ কফি পান করলে আমাদের শরীরের শক্তি বৃদ্ধি পায় । এর জন্য প্রতিদিন এক থেকে দুই কাপ কফি পান করতে হবে ।

৭) আনন্দের অনুভূতি

যে খাবারগুলো আমাদের খুশি করে তার মধ্যে একটি হল কফি । যখন কফির সুগন্ধ আমাদের নাকে লাগে, তখন আমরা খুব উজ্জীবিত হই । এবং যখন কফি আমাদের পেটে প্রবেশ করে, তখন আমরা বেশ দিশেহারা বোধ করি । আমরা বুঝতে পারি না কিভাবে সময় ফুরিয়ে যায় । তাই প্রতিদিনের আনন্দ পেতে কফি পান করতে পারেন ।

৮) লিভারকে রক্ষা করে

লিভারে চর্বি জমার পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় লিভারে নানা সমস্যা দেখা দেয় । গবেষকদের মতে, কফি লিভারের চর্বি কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে । তাই আপনি যদি আপনার লিভারকে সুস্থ রাখতে চান তাহলে ক্যাফেইনযুক্ত কফি খেতে পারেন ।

৯) অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট

আমরা জানি যে আমাদের শরীরের ফ্রি র‌্যাডিকেল খুবই ক্ষতিকর । বিশেষ করে শরীরের কোষ ধ্বংস করে । কফিতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টক ফ্রি র‌্যাডিক্যালের বিরুদ্ধে কাজ করে । যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী । এমনকি কফি শরীরে গ্লুকোজের মাত্রা কমাতে পারে ।

১০) ত্বক উজ্জ্বল করে

আমরা আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল করার জন্য সবকিছুই করি। অনেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নেন, আবার অনেকে বিভিন্ন ক্রিম ব্যবহার করেন। তারপরেও দেখা যাচ্ছে গতি উজ্জ্বল নয়। এ ধরনের সমস্যা দূর করতে কফি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আপনি যদি প্রতিদিন এক থেকে দুই কাপ কফি পান করতে পারেন তবে এক সপ্তাহের মধ্যে আপনি এর উপকারিতা বুঝতে পারবেন।

১১) ঘুম ভালো হয়

কফি পান করলে রাতে ঘুম ভালো হয় । কফিতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের ভালো ঘুমাতে সাহায্য করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে । তাই যাদের রাতে ঘুম কম হয় তাদের জন্য কফি খুবই উপকারী । এছাড়া কফিতে আরেকটি গুণ আছে যে, সকালে ঘুম থেকে উঠলে আমাদের শরীর ক্লান্ত লাগে ।

অন্য পোস্ট :

আপনি কি জানেন এই ক্লান্তি দূর করতে কফি খুবই কার্যকরী? তাই এ ধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে প্রতিদিন এক থেকে দুই কাপ কফি পান করতে পারেন ।

১২) হজমশক্তি বাড়ায়

বিশেষ করে যাদের হজমশক্তি দুর্বল তাদের জন্য কফি পান করা খুবই উপকারী । কারণ কফিতে থাকা ক্যাফেইন হজমশক্তি বাড়াতে পারে । হজমশক্তির উন্নতির জন্য আমরা চিকিৎসকের পরামর্শ নিই । অনেকে বিভিন্ন ফার্মেসি থেকে ওষুধ খায় । এত কিছু করার পরও হজম শক্তি বাড়ে না। তাই আমাদের পরামর্শ মেনে প্রতিদিন দুই থেকে তিন কাপ কফি পান করলে অবশ্যই আপনার হজম শক্তি বৃদ্ধি পাবে ।

১৩) পারকিনসন রোগ প্রতিরোধ করে

পারকিনসনস একটি মারাত্মক রোগ। এই রোগ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে । এই রোগ নিরাময়ের জন্য আমাদের কাছে ডাক্তারের পরামর্শ নেই । তবে এই রোগ নিয়ন্ত্রণে কফি বিশেষ ভূমিকা পালন করে । কারণ কফিতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পারকিনসন রোগকে ধ্বংস করতে পারে । তাই আপনি যদি পারকিনসন্স রোগে আক্রান্ত হন তাহলে প্রতিদিন কফি পান করে পারকিনসনের ঝুঁকি কমাতে পারেন ।

১৪) ডায়াবেটিস কমাতে পারে

ডায়াবেটিস একটি নীরব ঘাতক রোগ । এমন কোনো পরিবার নেই যেখানে ডায়াবেটিস নেই । যাদের বয়স ৪০ বছরের বেশি তাদের বেশির ভাগই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত । এখন দেখা যাচ্ছে তরুণদের মধ্যে ডায়াবেটিস ছড়িয়ে পড়ছে । গবেষকদের তথ্য থেকে জানা যায়, যে ব্যক্তি প্রতিদিন এক থেকে দুই কাপ কফি পান করেন তার শরীরে ডায়াবেটিস প্রবেশ করতে পারবে না ।

১৫) মস্তিষ্ক ভালো কাজ করে

আমরা যারা কৃষিকাজ করি তারা শরীরের তেমন যত্ন নিই না । ফলে ত্বকের সমস্যা, মস্তিষ্কের সমস্যা, রোগ সহজেই শরীরে প্রবেশ করতে পারে । কিন্তু রাতে ঘুমানোর আগে এক কাপ কফি পান করলে আপনার মস্তিষ্ক ভালোভাবে কাজ করবে ।

পরিশেষে

বন্ধুরা, আমরা যতটুকু জানি কফি খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে আপনাদের ততটুকু ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি । তারপরেও যদি কিছু জানার বাকি থাকে, তাহলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন । আমরা আপনার প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব, ধন্যবাদ ।

Similar Posts